নোবিপ্রবি’র বর্তমান ভিসিকে সাবেক ভিসির কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য: নীলদলের নিন্দা

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি:
 
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলমকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক পোস্টে ও এস এ টেলিভিশনের টকশোতে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামানের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নোবিপ্রবি নীল দল।
 
রবিবার (১২ জুলাই) রাতে নোবিপ্রবি নীলদলের সভাপতি ড. ফিরোজ আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব মল্লিক স্বাক্ষরিত এক প্রতিবাদ লিপিতে এ প্রতিবাদ জানায় নীল দল।
 
প্রতিবাদলিপিতে বলা হয়, নীল দল, নোবিপ্রবি অত্যন্ত ক্ষোভের সঙ্গে জানাচ্ছে যে, গত ৯ জুলাই এস এ টেলিভিশনের এক টকশোতে দুর্নীতি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলমকে ইঙ্গিত করে সাবেক উপাচার্য বলেন ‘মনে করেন, আমি একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছিলাম। বলা যায়, চল্লিশ বছর আমাকে চেনে সবাই। আমারটা কিন্তু এজেন্সিতে যাচাই হয়েছে। আর যারা দেখা যায় যে বাংলাদেশই মানেনা, আওয়ামীলীগের লোকতো নই-ই, তাকে যে ওখানে উপাচার্য করা হলো, এই ফাইলটা কিন্তু সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর হাতে গিয়ে সাইন হয়েছে। এটা কিন্তু আর এজেন্সিতে গেলো না’।
 
প্রতিবাদলিপিতে আরো বলা হয়, আমরা নীল দল, নোবিপ্রবি পরিবার দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলতে চাই, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য একজন ব্যক্তি নন, একটি প্রতিষ্ঠান। বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম সম্পর্কে সাবেক উপাচার্যের কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে শুধু এই প্রতিষ্ঠানকে খাটো করেননি, তিনি নোবিপ্রবি একই সঙ্গে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর সাংবিধানিক ক্ষমতাবলের নিয়োগ প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তাঁদেরকে জাতির সামনে হেয় প্রতিপন্ন করেছেন।
উল্লেখ্য, গত ০৮ মে নোবিপ্রবি জনসংযোগ দপ্তরের একটি পোস্টে সাবেক উপার্চায অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামান কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া লক্ষ্মীপুর-২ আসনের বিতর্কিত সাংসদ কাজী শহিদ ইসলাম পাপলু ও তার স্ত্রী কাজী সেলিনা ইসলাম এমপি এবং সম্প্রতি দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের সঙ্গে মিলিয়ে উপাচার্যকে নিয়ে আপত্তকির মন্তব্য করছেনে। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শ্বিবদ্যিালয়ের উপার্চাযকে জড়িয়ে এহেন অনভিপ্রেত মন্তব্যের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানহানি করায় আমরা নীলদল, নোবিপ্রবি তীব্র প্রতিবাদ ও ঘৃণা জানাচ্ছি। অধ্যাপক ড. এম অহিদুজ্জামানের বক্তব্য অনভিপ্রেত ও অত্যন্ত দুঃখজনক বিধায় আমরা তাঁর বক্তব্য প্রত্যাহারের আহ্বান জানাচ্ছি।

এমডি/এমএইচ/বাংলাবার্তা