মহেশখালীতে একের পর এক শিক্ষার্থী খুন, নিরব দর্শকের ভূমিকায় প্রশাসন

115

মহেশখালী প্রতিনিধি:

ককক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নে পর পর দুইদিনে ঝরে গেল দুটি তাজা প্রাণ।জানা যায়,গত ৬ মে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের হামলায় প্রাণ হারায় স্হানীয় শাপলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, সরকারী পটিয়া কলেজে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত মেহেদী হাসান মিরাজ।

ঘটনার দুইদিন পার হলেও উপজেলা প্রশাসনের নিরব ভূমিকায় অপরাধীরা এখনও ধরা ছোয়ার বাইরে।প্রশাসনের এমন আচরণে মেহেদী হত্যার দুইদিন পর আজ বিকেলে আবারও খুন হয় একই ইউনিয়নের একই বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী নাসিমা আক্তার।

জানা যায়,,শাপলাপুর ইউনিয়নের মুকবেকী গ্রামের মোহাম্মদ আলির মেয়ে শাপলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী নাসিমা আক্তার (১৬) কলসি নিয়ে পানি আনতে গেলে সে একই এলাকার কবীর আহম্মদের ছেলে কাউছার কর্তৃক ইভটিজিং এর স্বীকার হয়।

এর প্রতিবাদ করায় কাউছার ও তার পরিবারের লোকজন নাসিমার ওপর হামলা করে।একপর্যায়ে কাউছারের আঘাতে নাসিমা আক্তারের মৃত্যু হয়।স্হানীয় এক ব্যক্তি বলেন ,উপজেলা প্রশাসনের নিরব ভূমিকার কারণেই পর পর প্রাণ গেল দুই শিক্ষার্থীর। ঘটনার সুষ্টু তদন্ত করে দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তির আওতায় আনার জন্য আমরা জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামণা করছি।

এসএস/এমএইচ/বাংলাবার্তা